এই গাছের ফলকে ‘বানরের পাউরুটি’ বলে কেন জানেন?

Share This
Tags

শিরোনাম পড়ে মনে খটকা লাগল? লাগতেই পারে। এই গাছের নাম বাওবাব গাছ। ফলের নাম ‘বানরের পাউরুটি’। একদম অদ্ভুত ধরনের এই গাছ সম্বন্ধে এবার জেনে নিন এরকমই অজানা কিছু তথ্য…

তালগাছের মতোই খাড়া, লম্বা এই গাছ উচ্চতায় ৫ থেকে ৩০ মিটার। দেখে মনে হতেই পারে যেন একপায়ে দাঁড়িয়ে। নয়টি প্রজাতির এই গাছের মধ্যে ৬টি প্রজাতিকে দেখা যায় মাদাগাস্কায়। দুটি গাছের দেখা মেলে আফ্রিকা আর আরবে। বাকি একটি অস্ট্রেলিয়ায়।

খুব কর্কশ, রুক্ষ মাটিতেও এই গাছ দিব্য জন্মায়, বাড়ে এবং ফল-ফুল ধরে। এরা দীর্ঘজীবী। এক একটি গাছের বয়স কম করে ৬ হাজার থেকে ১০ হাজার বয়স। এই গাছের গুঁড়ি এতটাই লম্বা যে এতে প্রায় ৩২ হাজার গ্যালন পানি ধরে রাখেতে পারে। সেই কারণেই এরা রুক্ষ মাটিতে খুবই সতেজ থাকে। এবং দীর্ঘদিন বেঁচে থাকতে পারে অনায়াসে।

এই গাছের ছাল নরম, তন্তুযুক্ত এবং আগুন প্রতিরোধী হওয়ায় এই বাকল দিয়ে কাপড় এবং দড়ি তৈরি হয়। গাছের পাতা সবুজ এবং চকচকে। এতে প্রোটিন, খনিজ এবং ভিটামিন এ আর সি প্রচুর পরিমাণে থাকে। ফলে, মশলা এবং ওষুধ হিসাবে এই গাছের পাতার ব্যবহৃত অনেক আগে থেকেই হয়ে আসছে।

গ্রীষ্মের গোড়ার দিকে গাছে খুব বড়, সাদা ফুল দেখা দেয়।। এগুলি বিকেলে পাপড়ি মেলে। সারা রাত ফুটে থাকার পর সকালে এরা ঘুমিয়ে পড়ে মাটির বুকে। সেই সময় ভীষণ মিষ্টি গন্ধ বের হয়।

গাছের ফলগুলিও বড় আকারের। একেকটির ওজন প্রায় দেড় কেজি। দেখতে অনেকটা নারকেলের মতো। এই ফল নাকি বানরেরা খুব তৃপ্তি করে খায়। তাই এই ফলের আরেক নাম ‘মাঙ্কি ব্রেড’। এনডিটিভি।

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

এই গাছের ফলকে ‘বানরের পাউরুটি’ বলে কেন জানেন?