কলাবাগানে নিয়ে ৪ সন্তানের জননীকে পালাক্রমে ধর্ষণ

বগুড়ার শিবগঞ্জে চার সন্তানের জননীকে পালাক্রমে গণধর্ষণ করেছে পাঁচ যুবক। এ ঘটনায় ঐ এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে । ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

গত শুক্রবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নের ওমর সানীর মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় শনিবার শিবগঞ্জ থানায় মামলা করেছে ভুক্তভূগী ঐ নারী।

মামলা সূত্রে জানা যায়, স্বামী পরিত্যাক্তা ওই মহিলার এক সন্তান পার্শ্ববর্তী সোনাতলা উপজেলায় চাকরী করে । শুক্রবার রাতে তার সন্তানের সাথে দেখা করে সোনাতলা থেকে ফেরার পথে সৈয়দপুরের ওমর সানীর মোড় এলাকায় আসলে ঐ পাঁচ যুবক অটোভ্যান আটকিয়ে তাকে জোরপূর্বক পার্শ্ববর্তী নির্জন কলার বাগানে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ফেলে রেখে যায়।

এদিকে ঐ মহিলার আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। পরে এলাকাবাসী ও স্বজনদের সহায়তায় তাকে শিবগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঐ মহিলাকে হাসপাতাল থেকে থানায় নিয়ে আসেন। তার জবানবন্দী অনুসারে অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত এক যুবককে আটকও করে পুলিশ।

আটক যুবকের নাম জিহাদ হোসেন। সে উপজেলার পূর্ব সৈয়দপুর এলাকার ফজলুল হক মাস্টারের ছেলে। তবে তদন্তের স্বার্থে অভিযুক্ত বাকী চারজনের নাম প্রকাশ করেনি পুলিশ।

শিবগঞ্জ থানার ওসি মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত এক যুবককে আটক করা হয়েছে। আটক যুবক ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। বাকি আসামীদের আটকের জন্য অভিযান চালানো হচ্ছে।

এদিকে এ লোমহর্ষক ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত ঐ পাঁচ বখাটের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে সাধারণ মানুষ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঐ এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।