গলাকাটা গুজবে পাগলিনীকে মারধর, উদ্ধার করলো পুলিশ

পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজে মানুষের মাথা লাগবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এমন গুজবে গলাকাটা বস্তাওয়ালা ভেবে এক পাগলিনীকে (৬৫) নাজেহাল করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। বুধবার দুপুরে শাহরাস্তি পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের কাজিরকামতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, বুধবার দুপুরে ওই গ্রামের বড় বাড়ি সংলগ্ন রাস্তার মাথায় অজ্ঞাত পাগলিনীকে ঘোরাফেরা করতে দেখে স্থানীয় লোকজন। এমন সময় কে বা কারা ওই মহিলাকে পদ্মা সেতুর গলাকাটা গ্রুপের লোক বলে আখ্যা দিলে হুজুগে লোকজন তাকে মারধর করে ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূর মোহাম্মদ মোল্লার ব্যবসায়িক কার্যালয়ে নিয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ তাকে থানা হেফাজতে নেয়।

পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূর মোহাম্মদ মোল্লা জানান, এলাকাবাসি একজন মহিলাকে সন্দেহজনক ঘোরাফেরা করতে দেখে গলাকাটা ছেলে ধরা মনে করে মারধর করে আমার দোকানে নিয়ে আসে। আমি মানুষের রোষানল হতে তাকে বাঁচাতে পুলিশে খবর দেই।

শাহরাস্তি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ জহিরুল ইসলাম জানান, থানা হেফাজতে নেয়া মহিলাটি মানসিক বিকারগ্রস্ত। আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি তার বাড়ি নেত্রকোনা সদর থানা এলাকায়। পরিবারের লোকজন এলে তাদের জিম্মায় তাকে দেয়া হবে।

শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ শাহ আলম জানান, হেফাজতে থাকা মহিলাকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তরের চেষ্টা চলছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ানো গুজবে হুজুগে কিছু লোকজন এসব করছে। গুজবে কান না দেয়ার জন্য তিনি এলাকাবাসীর কাছে আহবান জানান।

এ ঘটনায় হিউম্যান রাইটস এক্টিভিটিস চাঁদপুর জেলা শাখার সভাপতি মোঃ মজিবুর রহমান রনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া গলাকাটা গুজবে মানসিক ভারসাম্যহীন ও ভবঘুরে অসহায় লোকগুলো নাজেহাল হচ্ছে। যারা এসব ছড়াচ্ছে তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনা ও অসহায় লোকগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রশাসনকে তৎপর হতে হবে।