চুয়াডাঙ্গা সীমান্তে বিএসএফের বিরুদ্ধে বাংলাদেশিকে হত্যার অভিযোগ

চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদার ঠাকুরপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ আবদুল্লাহ মন্ডল (৪৬) নামে এক বাংলাদেশিকে পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ বুধবার ভোরে সীমান্ত অতিক্রম করে ভারত থেকে গরু আনতে গেলে এ ঘটনা ঘটে। তবে বিজিবির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ঘটনাটি এখনো তদন্তাধীন।

নিহত আবদুল্লাহ মন্ডল দামুড়হুদা উপজেলার ঠাকুরপুর গ্রামের মৃত গোলাম রসুল মন্ডলের ছেলে।

নিহত আবদুল্লাহর সহোদর হাবিবুরের অভিযোগ, ‘ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের হাতে ধরা পড়ার পর তাকে পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। হত্যার পর তার লাশ ফেলে রেখে যাওয়া হয় সীমান্তের জিরো পয়েন্টে। খবর পেয়ে সকালে গ্রামবাসীদের সাথে নিয়ে আমরা লাশ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসি।’

স্থানীয় ইউপি সদস্য সাখার উদ্দীন জানান, বুধবার ভোরে আবদুল্লাহসহ ৩/৪ জন বাংলাদেশী নাগরিক ঠাকুরপুর সীমান্তে যায় গরু আনতে। তারা সীমান্তের ৮৯/৯০ মেইন পিলারের কাছে অবস্থান করার সময় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের মালুয়াপাড়া ক্যাম্পের সদস্যরা তাদেরকে ধাওয়া দেয়। এসময় অপর তিন সদস্য পালিয়ে আসতে সক্ষম হলেও বিএসএফের হাতে ধরা পড়ে আবদুল্লাহ।

দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সুকুমার বিশ্বাস জানান, নিহত আবদুল্লাহর শরীরের বেশ কয়েকটি স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবির পরিচালক সাজ্জাদ সরোয়ার পিএসসি জানান, ঠাকুরপুর সীমান্তে একজন বাংলাদেশি নাগরিকের লাশ উদ্ধারের খবর আমরা পেয়েছি। তবে কে বা কারা তাকে হত্যা করেছে এ বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।