ছড়াকার-সাংবাদিক নূর মোহাম্মদ রফিক আর নেই

চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষার অভিধান প্রণেতা, খ্যাতিমান ছড়াকার ও সাংবাদিক নূর মোহাম্মদ রফিক আর নেই। সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তিনি হালিশহর আনন্দ বাজারে বোনের বাসায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি… রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকাল পৌনে ১১টায় নূর মোহাম্মদ রফিকের মরদেহ চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে আনা হবে সাংবাদিক, সাহিত্য-সংস্কৃতিকর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য। সেখানেই প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর জোহর নামাজের পর হালিশহরের বাড়ির পাশের মসজিদে নামাজে জানাজা শেষে দাফন করা হবে।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) ও চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের প্রবীণ সদস্য নূর মোহাম্মদ রফিক দীর্ঘদিন ধরে মুক্তিযুদ্ধকালীন ক্ষত এবং বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। যুদ্ধের সময় পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর গোলার আঘাতে নূর মোহাম্মদ রফিকের বাম পায়ে মারাত্মক জখম হয়। বঙ্গবন্ধু সরকার তাকে চিকিৎসার জন্য ফ্রান্সে পাঠান। চিকিৎসা পুরোপুরি শেষ হবার আগেই মাতৃভূমির টানে তিনি সদ্য স্বাধীন দেশে ফিরে আসেন। পায়ের ক্ষত নিয়ে ৪৭ বছর ধরে কষ্টকর জীবনযাপন করে আসছিলেন। সম্প্রতি পায়ের ক্ষত ক্রমাগত বাড়তে থাকে।

নূর মোহাম্মদ রফিকের জন্ম ১৯৪৪ সালে নগরীর হালিশহরে। তার বাবা আবদুন নবী খান, মা ফুলমেহের খাতুন। আশির দশকে দৈনিক আজাদীতে যোগ দিয়ে সাংবাদিকতা পেশায় যুক্ত হন। এরপর দৈনিক পূর্বকোণ, ইত্তেফাক, নয়াবাংলাসহ বেশ কিছু দৈনিকে কাজ করেন। তার লেখা ও সম্পাদিত বইয়ের মধ্যে রয়েছে ‘চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষার অভিধান’, ‘চতুষ্পদে’ (কবিতা), ‘বত্রিশ লিমেরিক’, ‘ফান্দে পড়িয়া বগা’ (কৌতুক), ‘বিশ্ব মনুষ্য বসতি: আসন্ন সংকটকাল’ (প্রবন্ধ) উল্লেখযোগ্য।

নূর মোহাম্মদ রফিকের মৃত্যুর খবর পেয়ে তার হালিশহরের বাসায় ছুটে যান বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) মহাসচিব ওমর ফারুক। এ সময় তিনি পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান।

‘চিরকুমার’ নূর মোহাম্মদ রফিকের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল ও মহাসচিব ওমর ফারুক, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সভাপতি কলিম সরওয়ার, সিইউজে সভাপতি নাজিমুদ্দিন শ্যামল, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহ-সভাপতি শহীদ উল আলম, ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ,সিইউজে সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস ও বিএফইউজের যুগ্ম মহাসচিব তপন চক্রবর্তী গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।
তারা প্রয়াতের আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং শোকাহত স্বজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

পৃথক বিবৃতিতে গভীর শোক জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক হাউজিং কো-অপারেটিভ সোসাইটির সভাপতি স্বপন কুমার মল্লিক, চট্টগ্রাম ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মশিউর রেহমান বাদল ও সাধারণ সম্পাদক রাশেদ মাহমুদ, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন চট্টগ্রামের সভাপতি মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু ও সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান।