তেল ট্যাংকার আটক : আমেরিকাকে ইরানের হুঁশিয়ারি

জিব্রাল্টার প্রণালী থেকে ব্রিটেনের হাতে আটক হওয়ার পর মুক্তিপ্রাপ্ত ইরানগামী সুপার তেল ট্যাংকারটি আটকের চেষ্টা করা হলে পরিণতি ভালো হবে না বলে আমেরিকাকে হুঁশিয়ারি করে দিয়েছে ইরান।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্বাস মুসাভি সোমবার এক নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। তিনি বলেন, ‘যদি মুক্ত হওয়া ইরানি তেল ট্যাংকার আটকের কোনো চেষ্টা চালানো হয় এমনকি এ বিষয়ে কোনো আলাপ আলোচনা করা হয় তাহলে তা হবে স্বাধীন জাহাজ চলাচলের জন্য সরাসরি হুমকি।’

তিনি বলেন, ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান আনুষ্ঠানিকভাবে বিশেষ করে সুইজারল্যান্ডের দূতাবাসের মাধ্যমে মার্কিন কর্তৃপক্ষের প্রতি যথাযথ হুঁশিয়ারি বার্তা পাঠিয়ে এ ধরনের মস্তিষ্কবিকৃত পদক্ষেপ না নেয়ার ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়েছে। কারণ এ ধরনের পদক্ষেপের জন্য পরিণতি ভোগ করতে হবে।

ব্রিটিশ নৌবাহিনী গত ৪ জুলাই জিব্রাল্টার প্রণালীর আন্তর্জাতিক সীমানা থেকে ২১ লাখ ব্যারেল তেলবাহী ইরানি ট্যাংকার ‘গ্রেস-ওয়ান আটক করে। ট্যাংকারটি সিরিয়ায় যাচ্ছিল বলে দাবি করে ব্রিটেন জানায়, সিরিয়ার ওপর ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করতে গিয়ে ইরানি তেল ট্যাংকার আটক করা হয়েছে; কিন্তু পশ্চিমা গণমাধ্যমগুলো জানায়, ইরানের ওপর আরোপিত আমেরিকার একতরফা নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করতে ওয়াশিংটনের অনুরোধে লন্ডন ওই কাজ করেছে। তেল ট্যাংকারটির আটকাবস্থা বিলম্বিত করার মার্কিন চাপ উপেক্ষা করে গত বৃহস্পতিবার জিব্রাল্টারের সুপ্রিম কোর্ট সেটি মুক্ত করে দেয়ার নির্দেশ দেয়।

মুখপাত্র মুসাভি বলেন, তেল ট্যাংকারটির আটকাবস্থা বিলম্বিত করার মার্কিন এ অনুরোধ ছিল ‘অবৈধ’। জিব্রাল্টার সরকারের মার্কিন অনুরোধ উপেক্ষা করা এবং আমেরিকার আপত্তিকে আমলে না নিয়ে গত মাসে জ্বালানির অভাবে ব্রাজিলে আটকা পড়া দু’টি জাহাজকে দেশটির জাতীয় তেল কোম্পানির মাধ্যমে জ্বালানি দেয়ার ঘটনার প্রতি ইঙ্গিত করে মুসাভি বলেন, ‘বর্তমান বিশ্বে কোথাও মার্কিন বলদর্পিতার কোনো স্থান নেই।’ পার্স টুডে