মিথ্যে মামলায় ময়মনসিংহ লাইভ ডট কমের সম্পাদক আব্দুল কাইয়ূমকে গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার: ময়মনসিংহের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজপোর্টাল ময়মনসিংহ লাইভ ডট কমের সম্পাদক ও মানবাধিকার কর্মী আব্দুল কাইয়ূমকে মিথ্যে মামলার অভিযোগ দেখিয়ে গ্রেফতার করা হয়েছে।  গত ১১ই মে (শনিবার) বিকেল ৩ টার দিকে প্রভাবশালী ইদ্রিস খানের মৌখিক অভিযোগে ময়মনসিংহের আলিয়া মাদ্রাসা রোড হতে কাইয়ূমকে গ্রেফতার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল (ডিবি)। প্রাথমিকভাবে তাকে ডলার ব্যবসায়ী বলে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ, কিন্তু ডলার ব্যবসার সাথে আব্দুল কাইয়ূমের কোনোপ্রকার সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ না পাওয়ায় ডিবি কার্যালয়ে তাকে ২দিন আটক রাখার পর ১৩ ই মে (সোমবার) তার বিরুদ্ধে ত্রিশাল থানায় ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে’ একটি মামলা দায়ের করা হয়।

পরে জানা যায়, ময়মনসিংহ শহরের প্রভাবশালী ব্যক্তি ইদ্রীস খান বাদী হয়ে ত্রিশাল থানায় মামলাটি করেন। মামলায় সাংবাদিক আব্দুল কাইয়ূম এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রকার বানোয়াট, মিথ্যে ও ভিত্তিহীন অভিযোগ দেখানো হয়। বাস্তবে যার কোনো সত্যতা নেই। ব্যক্তিগত আক্রোশ হতেই এমনটি করেন তিনি। ক্ষমতাধর ইদ্রীস খান মোমেনশাহী ডি এস কামিল মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ও এমপি জামাতা। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্নবার একাধিক অনলাইন পত্রিকায় দুর্নীতি, জালিয়াতি, অনিয়ম ও চাঁদাবাজিসহ তার বিভিন্ন কুকর্মের নিউজ ছাপা হয়। কে বা কারা সেইসব নিউজ প্রচার করেছে তা সম্পর্কে ইদ্রীছ খান জ্ঞাত না থাকায় ব্যক্তিগত আক্রোশ কে কাজে লাগিয়ে সাংবাদিক আব্দুল কাইয়ূমকে ফাঁসিয়ে দেয় ও দোষী সাব্যস্ত করে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।

মামলার এজাহারে কাইয়ূমকে ব্ল্যাকমেইলার, হ্যাকার, শিবির কর্মীসহ আরো বিভিন্ন প্রকার বানোয়াট ভিত্তিহীন মিথ্যে অভিযোগ দেখানো হয়। উল্লেখ্য যে, কিছুদিন আগে ইদ্রীস খান ”ভূয়া পেইজকারীদের ধরিয়ে দিলে আকর্ষণীয় পুরুষ্কার” নামক শিরোনামে ‘বার্তা বাংলাদেশ’ নামক তার নিজস্ব অনলাইন পত্রিকায় একটি নিউজ প্রকাশ করে। তাকে ব্ল্যাকমেইল করা হচ্ছে বলে সেখানে ব্ল্যাকমেইলারের তথ্য সম্বলিত কিছু নাম্বার, নিউজপেপার, ও ফেসবুক পেইজের নাম উল্লেখ করেন। যার সাথে সাংবাদিক আব্দুল কাইয়ূমের কোনো প্রকার সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ নেই। 

ইদ্রীস খানের পুরুষ্কার ঘোষণাকারী সেই বিজ্ঞাপন
ইদ্রীস খানের পুরুষ্কার ঘোষণাকারী সেই বিজ্ঞাপন

 

মামলার এজাহারে উল্লেখিত বানোয়াট অভিযোগ
মামলার এজাহারে উল্লেখিত বানোয়াট অভিযোগ