যারা গরিবের ত্রাণ মেরে খায় তারা কী মানুষ, প্রশ্ন রিজভীর

মে ১৮ ২০২০, ০৮:২৮

করোনাভাইরাসের সংকটকালে গরিব মানুষের জন্য সরকারের ত্রাণ বিতরণে বাটপারি ও চরম জালিয়াতি হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, যারা গরিব মানুষের ত্রাণ মেরে খায় তারা কী মানুষ? এদের কী দেশের প্রতি জনগণের প্রতি কোনো মায়া থাকতে পারে? এদের কোনো মায়া নেই বলেই আজকে দেশে ভয়ংকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

তিনি বলেন, সরকার করোনা বিষয়ে সঠিক তথ্য গোপন করে মানুষকে অন্ধকারে রাখছে। জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকার হলে এসব হতো না।

সোমবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে শংকর এলাকায় গরিব মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণের সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন রিজভী।

ঢাকা মহানগর বিএনপির সাবেক সদস্য সচিব ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মো: আবদুস সালামের উদ্যোগে এই ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠান হয়। এসময় বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম, মোহাম্মদপুর থানা বিএনপি সভাপতি মো: ওসমান গনি, সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজী মো: ইউসুফ, সাংগঠনিক সম্পাদক জামাল হোসেন কোয়েল, আদাবর থানা বিএনপি সভাপতি অ্যাডভোকেট আক্তারুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক হাজী মো: নাসির উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, প্রধানমন্ত্রী ৫০ লাখ মানুষকে ত্রাণ হিসেবে টাকা দিবেন। সেখানে দেখা গেছে ৪০ জন লোকের নামের পাশে শুধু একটিই মোবাইল নাম্বার দেয়া আছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য ও প্রশাসনের কিছু লোক এই ধরনের অনৈতিক কাজে লিপ্ত। তাহলে বুঝেন কী ধরনের চুরি-চোট্টামি চলছে?

তিনি বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীরা পকেটের টাকা দিয়ে সারাদেশে অসহায় গরীব মানুষকে প্রাণ দিচ্ছে। আমরা এমনিতেই বিপদে আছি। আমাদের রাস্তায় দেখলেই গ্রেফতার করা হয়। গুম করে নিয়ে যায়। এই অবস্থার মধ্যেও বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বলেছেন, যতই বিপদ আসুক অসহায় মানুষদের পাশে থাকতে হবে। এজন্য আমরা সারাদেশে সর্বদা মানুষের পাশে আছি এবং থাকব। কিন্তু বিএনপির এসব কার্যক্রম সহ্য করতে পারছে না সরকার। তারা হিংসায় জ্বলে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, সরকার কয়েকটি ফ্লাইওভার তৈরি করে উন্নয়নে ভাসিয়ে দিচ্ছেন বলে প্রচার করছে। কিন্তু করোনা রোগীদের দরকার ভেন্টিলেটর, অক্সিজেন। দেশের ৯০ ভাগ হাসপাতালে এ ব্যবস্থা নেই। তাহলে মানুষ বাঁচবে না মরবে? সরকার মানুষ বাঁচানোর কোনো কাজ করেনি।

রিজভী আরো বলেন, আজকে মানুষের লাশ পরে থাকে রাস্তার ধারে, নদীর কিনারে! হাসপাতালে কোনো চিকিৎসা নেই। অক্সিজেন সিলিন্ডার ও মাস্ক নেই। ভেন্টিলেটর নেই। তাহলে তো মানুষ মরবেই!

এসবের মধ্যেই বিএনপি নেতাকর্মীরা সামর্থ্য অনুযায়ী গরিব অসহায় মানুষের পাশে থাকবে এবং ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা অব্যাহত রাখবে বলে জানান বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব।

Share