শরীয়তপুর জেলা বিএনপি সভাপতির বাসভবনে হামলা ভাংচুর

শরীয়তপুর জেলা বিএনপির সভাপতি, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক এমপি শফিকুর রহমান কিরনের বাসভবনে হামলা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার বালার বাজারে তার নিজ বাসভবনে এ হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।

এ সময় হামলাকারীরা বাড়ীর মূল ফটক ভাঙ্গতে ব্যর্থ হয়ে ফটক ও নিরাপত্তা দেয়ালের অন্তত অর্ধশতাধিক লাইটপোষ্ট ভেঙ্গে ফেলে। স্থানীয় বিএনপির দাবী জেলা বিএনপির সভাপতি শফিকুর রহমান কিরণ নিজ গ্রামের বাড়ীতে অবস্থান করছেন ভেবে তার উপর হামলার উদ্দেশ্যেই অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা এ হামলা করেছে।

শরীয়তপুর জেলা বিএনপির সভাপতির বাড়ীর কেয়ারটেকার বিল্লাল হোসেন ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জেলা বিএনপির সভাপতি গত মঙ্গলবার শরীয়তপুরের আদালতে একটি রাজনৈতিক মামলায় হাজিরা দিয়ে ঢাকায় চলে যান। মঙ্গলবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে কেয়ারটেকার বিল্লাল হোসেন বাড়ীর মূল ফটক ও আশেপাশের দেয়াল পিটিয়ে ভাংচুর করার শব্দ পায়। পরে সে বের হয়ে লাইট পোস্ট ভাঙ্গতে দেখে চিৎকার দিলে হামলাকারী চলে যায়। এর আগেই হামলাকারীরা বাড়ীর মূল ফটক ভাঙ্গতে ব্যর্থ হয়ে মূল ফটক ও নিরাপত্তা দেয়ালের অন্তত অর্ধশতাধিক লাইট পোস্ট ভেঙ্গে ফেলে। ঘটনাটি শফিকুর রহমান কিরন সখিপুর থানা পুলিশকে অবহিত করার পর সখিপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

সখিপুর থানা যুবদল সভাপতি মোস্তাক আহম্মেদ মাসুম বালা বলেন, জেলা বিএনপির সভাপতি সফিকুর রহমান কিরন মঙ্গলবার শরীয়তপুরের আদালতে একটি রাজনৈতিক মামলায় হাজিরা দিয়ে ঢাকায় চলে যান। সন্ত্রাসীরা ভেবেছিলো সফিকুর রহমান কিরন হাজিরা শেষে বাড়িতে অবস্থান করছেন এবং তাকে মারার উদ্দেশ্য করেই হামলা করে ব্যাপক ভাংচুর করেছে বলে আমরা ধারণা করছি। আমরা প্রশাসনের নিকট এর সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে বিচার দাবী করছি।

জেলা বিএনপির সভাপতি সফিকুর রহমান কিরন বলেন, আমার গ্রামের বাড়িতে হামলা করে বাড়ির গেইট ও লাইপোস্ট ব্যাপক ভাংচুর করেছে। আমি পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করেছি। প্রশাসনের কাছে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে এর উপযুক্ত বিচার চাই।

সখিপুর থানার ওসি এনামুল হক বলেন, আমি বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থ পরিদর্শন করেছি। কে বা কারা হামলা করে বাড়ীর মূল ফটক ও আশেপাশের লাইট পোস্ট ভেঙ্গে ক্ষতি করেছে। বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।